Home / অন্যরকম / ৩১ দিনে ৫০ কবিতা-জাহাঙ্গীর বাবু

৩১ দিনে ৫০ কবিতা-জাহাঙ্গীর বাবু

৩১ দিনে ৫০ কবিতা-জানুয়ারি ২০১৭ইং 

IMG_2547 (2)
জাহাঙ্গীর বাবু
কবিতা না ছাই , যা মনে পড়ে মাথায় আসে কবিতার মতো লিখে যাই।ইচ্ছে করলে প্রতিমাসে একটি কবিতার বই প্রকাশ করা যায়। কিন্তু না আছে পাঠক ,না আছে বিনি পয়সার প্রকাশক।সবাই খুঁজে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর আর কবি নজরুল !
এর আগে গত ডিসেম্বরে ছিলো এক চল্লিশ। ছুটির দিন গুলিতে ছিল বাবাৰ আলী আর মিউজিক ভিডিওর শুটিং। ফেসবুকের লেখা বলে অনেকে বস্তা পঁচা ও বলে। নিজেদের লেখার উপর কনফিডেন্ট থাকা ভালো ,অন্যের লেখা নিয়ে বাজে মন্তব্য বা বস্তা পঁচা ঠিক নয় । এই ৫০ কবিতার মাঝে একটি কবিতাও যদি মূল্যায়িত হয় ও যে পাওনা।বিশাল পাওনা। যদিও বাংলাদেশের বিভিন্ন অনুষ্ঠানে গিয়ে অনেক অভিজ্ঞতাই হয়েছে।অনেকের কবিতার বই পরেও হয়েছে। সে যাই হোক। আগামী দিনেরকথা জানিনা। অনেক ঝুক্কি ঝামেলার মাঝে অপরিকল্পিত ভাবে ত্রিশ দিনে পঞ্চাশ কবিতার জন্ম দিলাম। ফেসবুক বন্ধু অনলাইন পত্রিকার পাঠক,সম্পাদকদের অনুপ্রেরণায়। কেন বললাম অনলাইনে প্রকাশিত হলেই আরেকটা লেখার ইচ্ছা জাগে। ফেসবুকে কেউ লাইক ঠুকলেই আরেকটি লেখার প্রেরণা বাড়ে।যদিও লাইক কমেন্টস কারীদের চাইতে আমায় যারা কষ্ট দেয় ,যারা মার্ দেশকে নিয়ে তামাশা করে,যারা হটাৎ করে আমার ঠোঁটের কোন একটু হাসি, চোখের কোন একটু শত্রু এনে দেয় ,বিস্ময় যারা তান্ডব করে মানবতা ,বিবেকের জলাঞ্জলি দে তারা আর পরিস্থিতি আমাকে কবিতা বা লিখতে বাধ্য করে.
২০১৭ সালে ভেবেছিলাম আর কবিতা লিখবো না ,কারণ নানা বিধ.অনেকেই বলে সপ্তাহ ,পনের দিন রিসার্চ করে একটি লিখতে,বেশি লিখলে কদর কমে যায়. কসম করেছিলাম দূর আর লিখবোই না। সমস্যা হচ্ছে ফেসবুকের সহজ একসেস,তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় ,কমেন্টস স্টাটাসে কিছু লিখতে গেলেই কবিতার আদলে কবিতা বা কিছু একটা লেখা হয়. অনেক সময় কি লিখেছি সেটাই মনে থাকে না। ফেসবুক বন্ধুরাও বিরক্ত হয় জানি,কিছু করার নেই,মনের ভুলে ফেসবুকে ফিরে আসা হয়.আর কিছু একটা লেখা হয়, জানুয়ারি প্রায় ৬/৭ টা নিউজ বেশ কিছু স্টাটাস একটা ছোট উপন্যাসের একতৃতীয়াংশ ছাড়াও ৫০ টি কবিতা কিভাবে হয়ে গেলো বুজতেই পারলাম না.বেশির ভাগ বাসে ,বাস স্টপে,মোস্তফা ক্যাফের টেবিলে লেখা। রাতে দুইটা ,তিনটার দিকে হটাৎ চোখ খুলে যাবার পর , ঝিমিয়ে ঝিমিয়ে লেখা।তিনটা ইন্দোনেশিয়াও সিঙ্গাপুরের বিভিন্ন আইল্যান্ডে ভ্রমনের সময় ,কাজের সাইটে অফিসে,কাজের স্পটে লিখেছি।অফিসের কাজের ফাঁকিতেও লেখা হয়। ৮,২৭ এবং ২৮ এ জানুয়ারিতে কবিতা লেখা হয়নি। কবিতার গুলোর নাম আর তারিখ নিচে দেয়া হলো ,জানুয়ারী মাসের প্রথম আর শেষ মানে ১ আর ৫০ নম্বর কবিতাটি দেয়া হলো। অবশ্য সব কবিতাই ফেসবুকে আছে আর গোটা দশেক আছে বিভিন্ন অনলাইন পত্রিকার পাতায়।
৫০.বিসর্জনের অর্জন বিজয়,স্বাধীনতা
৪৯.স্বপ্নে আসে নূরানী অবয়ব
৪৮.জীবন জুড়েই চলে ভূলের মাশুল-৩১-১ ২০১৭ ইং
৪৭.নির্বাক কষ্টেরা কষ্ট পায়-৩০-১-২০১৭ ইং
৪৬.জীবণ অজানা গন্তব্যের পথে-২৯-১-২০১৭ ইং
৪৫.সুখ পাখি কোথায়-২৯-১-২০১৭ ইং
৪৪.মন পিঞ্জর-২৯-১-২০১৭ ইং
৪৩.কনকরঞ্জিত-২৬-১-২০১৭ ইং
৪২.ছাল নাই বাঘা নাম, নাম তার আন্দোলন-২৬-১-২০১৭ ইং
৪১.নো ইনবক্স প্লীজ-২৬-১-২০১৭ ইং
৪০.ছাঁইয়া ছাঁইয়া জীবন-২৬-১-২০১৭ ইং
৩৯.এক দুরবীনেই দেখি-২৬-১-২০১৭ ইং
৩৮.কে দেবে ধিক্কার-২৬-১-২০১৭ ইং
৩৭.নারী তোমায় সালাম-২৬-১-২০১৭ ইং
৩৬.ঋণ-২৫-১-২০১৭ ইং
৩৫.শিকারীর চোখেও অশ্রু কণা-২৫-১-২০১৭ ইং
৩৪.দুশ্চরিত্র ভালবাসার মন-২৪-১-২০১৭ ইং
৩৩.বহুরুপী নারী-২৩-১-২০১৭ ইং
৩২.নেই বোধদয়-২৩-১-২০১৭ ইং
৩১.শিশু নির্যাতন বন্ধ কর-২২-১-২০১৭ ইং
৩০.আশায় বাঁধি বুক-২২-১-১০১৭ ইং
২৯.মহাপরাক্রম-২১-১-২০১৭ ইং
২৮.কিছুক্ষনের না,কবিতা নয় কিছু সময়ের বর্ণনা-২০-১-২০১৭ ইং
২৭.চোখের জলের নাগর-১৯-১-২০১৭ ইং
২৬.নষ্ট কবিতা-১৮-১-২০১৭ ইং
২৫.নিলামে উঠোনা,নিলামে তুলনা-১৮-১-২০১৭ ইং
২৪.সত্য হাঁটে ভীরু পায়ে-১৮-১-২০১৭ ইং
২৩.যত দোষ নন্দ ঘোষ-১৮-১-২০১৭ ইং
২২.বাবর আলী-১৭-১-২০১৭ ইং
২১.খুনীর হাসি-১৬-১-২০১৭ ইং
২০.একটা দীর্ঘশ্বাস,কয়েক যুগ কষ্টের সাক্ষী-১৫-১-২০১৭ ইং
১৯.একাই দেনাদার-১৫-১-২০১৭ ইং
১৮.হেমলক বিষের কাব্য বিলাস-১৪-১-২০১৭ ইং
১৭.শূন্যতায়-১৩-১-২০১৭ ইং
১৬.আঁধারে রয়েই গেলাম-১২-১-২০১৭ ইং
১৫.পরম্পরায়-১১-১-২০১৭ইং
১৪.সুখের আশে-১১-১-২০১৭ ইং
১৩.ঘোর-১০-১-২০১৭ ইং
১২.শনির দশায়-৯-১-২০১৭ ইং
১১.লাল চোখ-৯-১-২০১৭ ইং
১০.ফেসবুক চলবে অনন্তকাল, এ যে ট্রানজিট -৭-১-২০১৭ ইং
৯.যখন নিজেই নিজের পোস্টার-৭-১-২০১৭ ইং
৮.কাক তাড়ুয়ার অট্টহাসি-৬-১-২০১৭ ইং
৭.কেন চোখ ভিজে-৫-১-২০১৬ ইং
৬.কার ইশারায়,কেন -৪-১-২০১৭ ইং
৫.অশ্রু অঞ্জলি-৪-১-২০১৬ ইং
৪.ফ্রি-৪-১-২০১৭ ইং
৩.সম্পর্ক-৩-১-২০১৭ ইং
২.প্রতিবন্ধী হয়ে যাই-২-১-২০১৭ ইং
১.আছি পূর্বের মতই-১-১-২০১৭ ইং
আছি পূর্বের মতই
জাহাঙ্গীর বাবু
নব বরষে নবীন হরষে নিও ,
সেই পুরাতন ভালোবাসা
যেখানে ছিলো বিশুদ্ধ বিশ্বাস,
আমি আছি পূর্বের মতই।
কত ফুল ফুটল বাগানে ,
কতো ফুল ঝরে গেলো
পোকায় ধ্বংস করে দিলো,
কত ফুলের গাছ।
নতুন গাছ ,নতুন ফুলে,
সেজেছে বাগান।
মনের বাগান রেখেছি ,
পূর্বের মতোই।
নব বরষে নবীন হরষে নিও,
সেই পুরাতন ভালোবাসা
যেখানে ছিলো বিশুদ্ধ বিশ্বাস,
আমি আছি পূর্বের মতই।
স্মৃতির পাতায় অম্লান থাক
ভালোবাসার চিহ্ন গুলো।
মুছে যাক ,কষ্ট ,গ্লানি ,
না পাওয়ার বেদনা।
তোমার চাওয়া গুলো পূর্ণতা পাক
তারই মাঝে খুঁজে নেব না হয়
কিছু প্রাপ্তি আমার ।
আমার চাওয়ার নেই কিছুই
প্রেম,ভালোবাসা ,বিশ্বাস
দেউলিয়া হয়েছে সেই কবে !
মিথ্যে ফানুশের ঘরে
আজো খুঁজি সুখের নীড় ,
বালুচরে আজো নির্মাণ করি
স্বপ্নের তাজমহল।
নব বরষে নবীন হরষে নিও
সেই পুরাতন ভালোবাসা
যেখানে ছিলো বিশুদ্ধ বিশ্বাস।
আমি আছি পূর্বের মতই।
স্মৃতির পাতায় অম্লান থাক
ভালোবাসার চিহ্ন গুলো।
মুছে যাক ,কষ্ট ,গ্লানি ,
না পাওয়ার বেদনা।
কি হবে,কি হতে পারে ,উত্তর জানা নেই
তবু বলি ,আমি আছি পূর্বের মতই।
সিঙ্গাপুর ,১-১-২০১৭ ইং
বিসর্জনের অর্জন বিজয়,স্বাধীনতা
জাহাঙ্গীর বাবু
লাল সবুজ একটি পতাকা
সবুজ বাংলা জয়ে লাল রক্ত বিসর্জন
রক্তাক্ত ইতিহাস ,রক্ত রঙ্গিন ,দুই রঙা ইতিহাস
লাল সবুজের ইতিহাস।
সাত রঙ নয়
দুই রঙ ,লাল-সবুজ।
স্বাধীনতার পক্ষের
বাংলাদেশ জন্ম দেয়ার এক শক্তি।
পাকিস্তানের পক্ষের ,
পাকিস্তানের অখন্ডতার এক শক্তি !
পাকিস্তানের বিপক্ষে ,আগ্রাসনের বিপক্ষে
,ভূমির সংস্পর্শ হীন জবর দখলের বিপক্ষের শক্তি।
বাংলাদেশ,স্বাধীন ভূখণ্ডের বিপক্ষের এক শক্তি।
মুক্তিযোদ্ধা বাংলাদেশের স্বাধীনতার পক্ষে (বাংলাদেশের পক্ষে) ,
মায়ের ,মাতৃভূমির পক্ষে।
রাজাকার (বাংলাদেশের বিপক্ষে,পাকিস্তানের পক্ষে,স্বাধীনতার প্রেক্ষাপটে ).
দুই পক্ষ -মুক্তিযোদ্ধা,রাজাকার দেশদ্রোহী
দুই রঙ -লাল সবুজ।
বাংলাদেশ (পূর্ব পাকিস্তান )
পশ্চিম পাকিস্তান (পাকিস্তান)
দুই দেশ এক হয় কি করে ?
পাকিস্তান ,আগ্রাসন, সত্তর এর নির্বাচন মেনে নেয় নি
বায়ান্ন তে ভাষার বীজ বপন ,একাত্তরে যুদ্ধ।
মার্চে শুরু ,ডিসেম্বরে শেষ।
কালো রাতে শুরু ,পঁচিশে মার্চের কালোরাত থেকে
অপারেশন সার্চ লাইট ,খুন হত্যা ধর্ষণ,সম্মুখ যুদ্ধ
বাড়ি ঘর রাস্তা ঘাট ,সাঁকো ,পুল ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ধ্বংস।
রাজাকারের সাহায্যে দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে পৌঁছায় পাকিস্তান।
ভারতের সরাসরি সাহায্যে ,বঙ্গবন্ধুর সাত মার্চের ভাষণ,
শহীদ জিয়ার কালুর ঘাট থেকে সাহসী উচ্চারণ
মাওলানা ভাষণ,আতাউল গনি ওসমানী ,লক্ষ শহীদের আত্মার বলিদান,
হাজারো বোনের ইজ্জতের বিনিময়ে দুই রঙের অর্জন।
সবুজ ভূমির মাঝে রক্তের অর্জন। মায়ের আঁচলে রক্তের দাগের অর্জন।
লাল সবুজের পতাকার অর্জন।
দুইয়ের অর্জন। জীবন বিসর্জনে অর্জন ,লজ্জা বিসর্জনের অর্জন।
ত্যাগের অর্জন ,ভোগ করে কয়জন ?
বিসর্জনের অর্জন বিজয়,স্বাধীনতা ,ভোগ করে কয়জন?
সার সংক্ষেপ, লালা সবুজের পতাকা ,দুই রঙের মিলন ফসল
বাংলাদেশ ,আমার মাতৃভূমি। এটাই সত্য।
সিঙ্গাপুর ,৩১-১-২০১৭ ইং

About এম মোস্তাকিম বিল্লাহ্

আরও দেখুন

22788791_290912191402175_8949463939259069467_n

বাংলাদেশ কবি পরিষদ (বাকপ)-এর সাক্ষাতকার পর্ব-১৩ কবি দীলিপ দাশ

আজকের কবিঃ কবি দীলিপ দাশ, সাক্ষাতকার গ্রহণেঃকবি সাজিব চৌধুরী ।    আজকের কবিঃ কবি দীলিপ দাশ, …

Leave a Reply